close(x)
 

যানজটের ফাঁদে পরীক্ষার্থীরা, আগামীতে সময়সূচি নিয়ে ভাবছেন মন্ত্রী

এইচএসসি পরীক্ষা শুরু হয়েছে আজ বৃহস্পতিবার (১৭ আগস্ট)। প্রথম দিনে বাংলা প্রথমপত্রের পরীক্ষায় ৮টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডে অংশ নিয়েছেন ১০ লাখের বেশি শিক্ষার্থী। সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

এদিকে, এইচএসসির প্রথম দিনে সকালে রাজধানীজুড়ে তীব্র যানজট দেখা গেছে। এতে পরীক্ষার কেন্দ্রে পৌঁছাতে হিমশিম খেতে হয় পরীক্ষার্থীদের। অসংখ্য শিক্ষার্থীকে নির্ধারিত সময়ের পরে কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দেখা যায়। এতে তাদের মধ্যে দেখা যায় আতঙ্ক। ছোটাছুটি করতে দেখা গেছে অভিভাবকদেরও।

খোদ শিক্ষামন্ত্রী যে পরীক্ষাকেন্দ্র পরিদর্শন করেন, সেখানেও পরীক্ষার্থীরা যানজটে পড়ে দেরিতে পৌঁছান। মন্ত্রী যখন রাজধানীর তেজগাঁও কলেজ কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফ করছিলেন, ঠিক তখন তার সামনেই অনেক পরীক্ষার্থী হন্তদন্ত হয়ে কেন্দ্রে প্রবেশ করেন।

পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে প্রবেশের নির্দেশনা থাকলেও পৌঁছাতে পারেননি মোসারাত জাহান। তার বাসা ধোলাইপাড় এলাকায়। সেখান থেকে মা ও ভাইয়ের সঙ্গে এসেছেন তিনি। ১০টা ২২ মিনিটে কেন্দ্রে প্রবেশ করেন মোসারাত।

বাইরে দাঁড়িয়ে থাকা তার মা আসমা বেগম কান্নাজড়িত কণ্ঠে জাগো নিউজকে বলেন, আমরা সকাল সাড়ে ৭টায় বের হয়েছি। সিএনজিতে এসেছি। কিন্তু রাস্তায় জ্যাম। দোয়া পড়তে পড়তে এসেছি। তাও ২০ মিনিট দেরি। কী যে করবে আমার বাচ্চাটা, কিছুই বুঝতে পারছি না।

তার পাশেই দাঁড়িয়ে থাকা আবু সালেহ জাগো নিউজকে বলেন, আমি মিরপুর থেকে এসেছি, ছেলে পরীক্ষা দিচ্ছে। সকাল পৌনে ৮টায় বাসা থেকে বের হয়েও পরীক্ষা শুরুর মাত্র ৫-৭ মিনিট আগে পৌঁছেছি। রাস্তায় গাড়ি নড়ছে না। হেঁটে এলেও বহু আগেই চলে আসতে পারতাম। পরীক্ষাটা সাড়ে ১১টা থেকে হলে রাস্তায় এত ভোগান্তি হতো না শিক্ষার্থীদের।

কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে ব্রিফিংয়ে সময়সূচি ও যানজট নিয়ে প্রশ্নের মুখে পড়েন ডা. দীপু মনি। জবাবে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ঢাকা শহরে এটি বিরাট একটা সমস্যা। গতবার এসএসসি পরীক্ষায় আমরা সময়সূচিতে ভিন্নতা এনেছিলাম। সকাল ১০টায় পরীক্ষা- এটা অফিস সময় আর পরীক্ষার সময় এক হয়ে যায়। এ কারণে যানজটে ভোগান্তিতে পড়ছে শিক্ষার্থীরা।

তিনি বলেন, এটা নিয়ে আমি অনেক আলাপ-আলোচনা করেছি। কিন্তু পরীক্ষাটা যখন সকাল-বিকেল রুটিনে হচ্ছে, তখন আপনি সময়টা একটু এগিয়ে বা পিছিয়ে আর করতে পারবেন না। সকালে ১০টা থেকে পরীক্ষা। আবার বিকেলের শিফটে দুপুর ২টা থেকে। বিকেলে পরীক্ষা থাকলে সকালেরটা ঠিক ১০টাতেই শুরু করতে হবে। একটুও পেছানোর সুযোগ নেই।

দীপু মনি আরও বলেন, তবুও আমরা এ নিয়ে (সময়সূচি পরিবর্তন) চিন্তা-ভাবনা করছি। আগামীতে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা একবেলায় নেওয়া যায় কি না। সেক্ষেত্রে আমরা অফিস সময় এড়িয়ে পরীক্ষার সময়সূচি ঠিক করতে পারবো।

কেন্দ্রের সামনে অভিভাবকদের ভিড় না করার অনুরোধ জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আমরা খেয়াল করেছি প্রতিটি কেন্দ্রের বাইরেই অনেক ভিড়। পরীক্ষার্থীদের বাবা-মা-অভিভাবকরা ভিড় করেন। অবশ্য আমরা যখন পরীক্ষা দিয়েছি, তখনও আমাদের বাবা-মায়েরা আসতেন। আমরা কাউকে দোষ দিতে পারি না। বাবা-মা যারা আসেন, তারা যদি একদম গেটের সামনে দাঁড়িয়ে থাকেন, তাহলে অন্য পরীক্ষার্থীদের সমস্যা হয়। আমি আহ্বান করবো, আপনার সন্তানের মতো অনেকের সন্তান পরীক্ষা দিচ্ছে। তাই একটু দূরে থাকুন।

দেশের ৮টি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এইচএসসি পরীক্ষা শুরু হয়েছে আজ। সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এ পরীক্ষায় অংশ নিয়েছেন ১০ লাখেরও বেশি পরীক্ষার্থী।

বৃহস্পতিবার থেকে দেশের ১১টি শিক্ষা বোর্ডে একযোগে এইচএসসি পরীক্ষা শুরুর কথা ছিল। এতে অংশ নিতে ফরম পূরণ করেছিলেন ১৩ লাখ ৫৯ হাজার ৩৪২ জন শিক্ষার্থী।

তবে বন্যার কারণে পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়া তিন বোর্ডের প্রায় সাড়ে ৩ লাখ শিক্ষার্থীকে এইচএসসিতে বসতে আরও ১০ দিন অপেক্ষা করতে হবে। আগামী ২৭ আগস্ট থেকে চট্টগ্রাম, মাদরাসা ও কারিগরি বোর্ডের পরীক্ষা শুরু হবে। সাধারণ বোর্ডগুলোর মধ্যে চট্টগ্রাম বোর্ডে এবার পরীক্ষার্থী ১ লাখ ১ হাজার ৩৫৩ জন এবং কেন্দ্র ১৫১টি।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *