close(x)
 

ভালোবাসার টান, পাবনায় এসে ঘর বাঁধলেন মালয়েশিয়ান তরুণী

মালয়েশিয়ান মেয়ে এবং পাবনার ছেলে

কথায় আছে- সত্যিকারের প্রেম মানে না কোনো বাধা, মানে না কোনো জাতি-বর্ণ-ধর্ম। তাইতো ভালোবাসার টানে সুদূর মালয়েশিয়ার এক তরুণী পাবনার সুজানগরে। মালয়েশিয়া থেকে একসঙ্গে পাবনায় এসে বেঁধেছেন ঘর-সংসারও।

পরিবারে সেচ্ছলতা ফেরাতে সাত বছর আগে মালয়েশিয়ায় পাড়ি জমিয়েছিলেন পাবনার সুজানগরের সাতবাড়িয়ার ইউনিয়নের তারাবাড়িয়া নতুনপাড়া গ্রামের সামাদ মণ্ডলের ছেলে রায়হান মণ্ডল।

রায়হান মণ্ডল জানান, দেশটির রাজধানী কুয়ালালামপুরে কাপড়ের দোকানে কাজ করতেন। একই কমপ্লেক্সে ছিল নুর শাহিদার বোনের রেস্টুরেন্ট। সেখানে খেতে যাওয়ার সুবাদে পরিচয় মালয়েশিয়ান তরুণী নুর শাহিদার সঙ্গে। পরিচয় থেকে সম্পর্ক গড়ায় ভালোবাসায়।

তরুণীর পরিবার থেকে কিছুটা বাধা এলেও পরে উভয় পরিবারের সম্মতিতেই বিয়ের সিদ্ধান্ত নিয়ে গত ১৬ জুলাই রবিবার তারা ঢাকায় আসেন। ১৭ জুলাই সোমবার এক লাখ টাকা দেনমোহরে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হোন তারা। সাবেক মালয়েশিয়াপ্রবাসী স্থানীয় ওয়ার্ডের মেম্বার আলতাব হোসেন আনাইয়ের মধ্যস্থতায় এই বিয়ে সম্পন্ন হয়।
মালয়েশিয়ান তরুণী নুর শাহিদা বলেন, রায়হান আমাকে ভালোবাসে, আমিও রায়হানকে ভালোবাসি।

বাংলাদেশে এসে আমি আমার পরিবার ও রায়হানের পরিবারের সম্মতিতে দুজন বিয়ে করেছি। এখানকার সবাই ভালো ও আন্তরিক। রায়হানের পিতা-মাতাসহ পরিবারের অন্য ভাই ও বোনেরাও আমাকে আপন করে নিয়েছেন। বাংলাদেশের প্রশংসা করে তিনি বলেন, এখানকার মানুষ খুব ভালো।
রায়হানের মা ও বড় ভাই বলেন, মালয়েশিয়া থেকে রায়হান তাদের বিয়ের বিষয়টি জানায়, তাদের সম্মতিতেই এই বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে।

ছেলের বউকে পেয়ে খুশি রায়হানের মা।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *