close(x)
 

ডিজির সাথে বৈঠক শেষে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা শিক্ষকদের

মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের দাবিতে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন শিক্ষকরা।

সোমবার (১৭ জুলাই) সন্ধ্যায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে গণমাধ্যমকর্মীদের সাথে আলাপকালে এই ঘোষণা দেওয়া হয়।

এর আগে এদিন বিকালে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক নেহাল আহমেদের সাথে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করে শিক্ষক নেতারা। বৈঠকে নিজেদের দাবি দাওয়া তুলে ধরেন তারা।

মাউশি ডিজির সাথে বৈঠক শেষে বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শেখ কাওসার আহমেদ বলেন, মাউশি ডিজির কাছে আমরা আমাদের দাবি তুলে ধরেছি। মাউশি ডিজিসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা গুরুত্ব দিয়ে আমাদের কথা শুনেছেন। তারা আমাদের দাবি যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে তুলে ধরার আশ্বাস দিয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, আমরা ক্লাস বন্ধ করতে চাই না। আমরা ক্লাসে তালা দেওয়ার আগে আমাদের দাবি নিয়ে প্রেসক্লাবে এসেছি। আমরা শিক্ষা প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করেছি। তবে আমাদের কথা কেউ শোনেনি। সেজন্য আমরা বাধ্য হয়ে ক্লাস বন্ধ করে আন্দোলনে এসেছি। জাতীয়করণের দাবি বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত আমাদের এই কর্মসূচি চলবে। আমরা প্রেসক্লাব ছেড়ে যাব না।

সভাপতি অধ্যক্ষ বজলুর রহমান মিয়া বলেন, আমরা শান্তিপূর্ণভাবে কর্মসূচি চালিয়ে যাব। রাস্তায় যেন কোনো প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি না হয় সেজন্য আমরা রাস্তার দুই পাশে অবস্থান নেব। তবে জায়গার সংকট না হলে শিক্ষক নেতারা পুলিশের সাথে কথা বলে বসার জায়গা নির্ধারণ করবেন।

তিনি আরও বলেন, আপনারা কোনো ধরনের গুজবে কান দেবেন না।

এর আগে সোমবার বিকেল পৌনে পাঁচটার দিকে অধিদপ্তরের পরিচালকের (কলেজ ও প্রশাসন) দপ্তরে এ সভা শুরু হয়। সভায় অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক নেহাল আহমেদ, মাধ্যমিক ও কলেজ শাখা পরিচালক, একজন উপপরিচালক ও পুলিশের কয়েকজন সদস্য অংশ নিয়েছেন। জানা গেছে, বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির (বিটিএ) পাঁচ নেতার সমন্বয়ে গঠিত প্রতিনিধি দলের সদস্যরা অধিদপ্তরে সভায় অংশ নিয়েছেন। সভা চলমান রয়েছে। পাঁচ নেতার সমন্বয়ে গঠিত প্রতিনিধি দলের মধ্যে আছেন, সভাপতি অধ্যক্ষ বজলুর রহমান মিয়া, সাধারণ সম্পাদক শেখ কাওছার আহমেদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, সংগঠনটির ঝিনাইদহ জেলার সভাপতি মহিউদ্দিন ও রংপুরের সভাপতি মোহাম্মদ আলী।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *