সুশৃঙ্খল আন্দোলনে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছি: খসরু

জনগণকে সঙ্গে নিয়ে সুশৃঙ্খল এবং অহিংস আন্দোলন এগিয়ে যাচ্ছি বলে উল্লেখ করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

তিনি বলেন, বিএনপির এখন সমাবেশ হয় না। বিএনপির প্রত্যেকটা কর্মসূচিই মহাসমাবেশ হয়। কারণ একদিকে জনগণের সমর্থন, অন্যদিকে সুশৃঙ্খল এবং অহিংস আন্দোলন। আগামী দিনে আন্দোলন আরও গতি পাবে, জনগণের অধিক সমর্থন নিয়ে আন্দোলন সফলতার দিকে যাবে।

শুক্রবার (২১ জুলাই) বিকেলে রাজধানীর গুলশানে দলের চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

আমীর খসরু বলেন, এই আন্দোলন বিএনপির বা কোনো দলের নয়। এই আন্দোলন সারাদেশের মানুষের মুক্তির আন্দোলন, গণতন্ত্র ফিরে পাওয়ার আন্দোলন, জনগণের ভোটাধিকার ফিরে পাওয়ার আন্দোলন, নিরাপত্তা ও মানবাধিকার রক্ষার আন্দোলন। এই আন্দোলনে বাংলাদেশের মানুষ সংযুক্ত হয়েছে, লাখ লাখ মানুষ রাস্তায় নেমে এসেছে।

বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর হামলা-মামলার চিত্র তুলে ধরে তিনি বলেন, গত এক সপ্তাহে বিএনপির দুজন মারা গেছেন। এর আগে আরও ১৭ জন মারা গেছেন। শত শত নেতাকর্মী আহত হচ্ছেন। মিথ্যা মামলা হচ্ছে, গ্রেফতার হচ্ছে।

সরকারি কর্মকর্তাদের বদলি প্রসঙ্গ তুলে আমীর খসরু মাহমুদ বলেন, পুলিশ পোস্টিং হচ্ছে, ডিসি পোস্টিং হচ্ছে, ইউএনও পোস্টিং হচ্ছে। ভোটচুরি প্রকল্পের সব কার্যক্রম অব্যাহত আছে। সব বিশ্ববিবেক, গণতন্ত্রকামী দেশ সবাই আজ বাংলাদেশে গ্রহণযোগ্য, নিরপেক্ষ, অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের জন্য কাজ করছে। আজ যদি বাংলাদেশে নিরপেক্ষ নির্বাচন থাকতো, তাহলে এতগুলো দেশের প্রতিনিধি দলের এখানে আসার কথা না।

এক দফা ঘোষণার পর বিএনপি সারাদেশে সহিংসতা ও হত্যাকাণ্ড শুরু করেছে- আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এই বক্তব্যের বিষয়ে আমীর খসরু বলেন, এই আন্দোলনের সবচেয়ে বড় সফলতা হচ্ছে- এটা একটা সুশৃঙ্খল, অহিংস আন্দোলন। জনগণকে সঙ্গে নিয়ে আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। আর যাদের কোনো জনসমর্থন নেই, যারা জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে, তারাইতো সহিংসতার দিকে যাবে। বিএনপি এবং যারা এই আন্দোলনে আছে, তাদের তো সহিংসতার দিকে যাওয়ার কোনো প্রয়োজন নেই।

শনিবার ঢাকায় হতে যাওয়া বিএনপির তারুণ্যের সমাবেশের প্রস্তুতি বিষয়ে জানতে চাইলে দলের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরামের এই নেতা বলেন, বিএনপির এখন প্রস্তুতি লাগে না। বিএনপি যখন সমাবেশ ডাকে, সেটা মহাসমাবেশ হয়।

বৈঠকে অন্যদের মধ্যে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, এনডিএমের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব হুমায়ুন পারভেজ খান প্রমুখ অংশ নেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *