close(x)
 

পুলিশের সামনে তারা বাসে আগুন দিয়েছে : ফখরুল

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, পুলিশের সামনেই বাসে আগুন দিয়ে, ভিডিও করে, মোটরসাইকেলে তারা চলে গেছে।

শনিবার (২৯ জুলাই) জরুরি সংবাদ সম্মেলনে এ মন্তব্য করেছেন তিনি।

ফখরুল অভিযোগ করে বলেন, পুলিশ বিনা উসকানিতে বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর নির্বিচারে গুলি চালিয়েছে। অথচ বাসে আগুন দেওয়ার ঘটনায় বিএনপিকে দায়ী করা হচ্ছে। কিন্তু কারা এ কাজ করছে তা সবাই জানে। সংবাদ মাধ্যমের কল্যাণে জানতে পেরেছি, তিন যুবক মোটরসাইকেলে এসে বাসে আগুন দিয়ে চলে যান। পুলিশ এ সময় আশপাশেই ছিল। তারা নিজেরা অপরাধ করে বিএনপির ওপর দায় চাপাচ্ছে। আমরা আশা করছি তারা এই কর্মকাণ্ড থেকে বিরত থাকবে। বিএনপি সহিংস রাজনীতি চায় না বলে দাবি করেন মির্জা ফখরুল।

কেন্দ্রীয় নেতাদের ওপর হামলা ও গ্রেপ্তারের বিষয়ে মহাসচিব বলেন, এই হামলার মাধ্যমে বুঝা যাচ্ছে এই সরকারের অধীনে কখনই সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব না। আজকের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে হামলা প্রমাণ করছে ক্ষমতালোভী সরকারের হাতে জনগণ নিরাপদ নয়। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আমানউল্লাহ আমানসহ বহু নেতাকর্মীকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি আমরা।

নিজেদের রক্ষার জন্যই গয়েশ্বর চন্দ্র রায়সহ বিএনপির আরও অনেককে নিয়ে প্রশাসন নাটক করেছে দাবি করে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ভিসা নীতি থেকে বাঁচার জন্য এমন আচরণ দেখানো হচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল, মিডিয়া সেলের আহ্বায়ক জহির উদ্দিন স্বপন, সদস্যসচিব শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানিসহ অনেকে।

কর্মসূচি পালনকালে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় নেতাকর্মীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে দলটি বিভিন্ন কর্মসূচি ঘোষণা করে সংবাদ সম্মেলনে।

এসময় ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আমরা আগামীকাল রোববারেই এই কর্মসূচি পালন করতাম। কিন্তু আওয়ামী লীগ কর্মসূচি দেওয়ায় আমরা পরের দিন সোমবার সারাদেশে জনসমাবেশ করবো। যাতে করে কোনো ধরনের সহিংসতা সৃষ্টি না হয়। আমরা শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে বিশ্বাসী।

তিনি আরও বলেন, কর্মসূচি পালনকালে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় নেতাকর্মীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে আগামী ৩১ জুলাই সোমবার সারাদেশে জনসমাবেশ করা হবে। এদিন দেশের সব জেলা ও মহানগরীতে গণসমাবেশ করবে নেতাকর্মীরা।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *