বিএনপির কাছে যে জবাব চাইলেন প্রধানমন্ত্রী

শনিবার (১২ আগস্ট) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় গণভবনে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির বৈঠকে তিনি এ কথা বলেন। আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন।

বিএনপির আমলে দেশের সর্বস্তরের মানুষ অত্যাচারিত, নির্যাতিত ছিল উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন,

তারা (বিএনপি নেতারা) মানুষকে যে নির্যাতন করেছে, সেগুলো কি মানুষ ভুলে যাবে এত তাড়াতাড়ি? এসব কেন করেছিল–এসবের জবাব আমি চাই বিএনপির কাছে৷ যাতের হাতে রক্তের দাগ তারা কোন গণতন্ত্র দেবে?

তিনি বলেন, আজ তারা তত্ত্বাবধায়ক সরকার চায়। খালেদা জিয়াসহ বিএনপির সব নেতাকেই আমার প্রশ্ন: সংসদীয় গণতন্ত্র চেয়েছিলাম আমরা। সেটা তো তারাই চায়নি। এখন কী বলবে তারা? তখন খালেদা জিয়া বলেছিল যে, পাগল আর শিশু ছাড়া কেউ নিরপেক্ষ নয়। বিএনপির নেতাদের বলছি, তারা কি সেই পাগল আর শিশু খুঁজে পেয়েছে?

শেখ হাসিনা বলেন,

একসময় যারা তত্ত্বাবধায়ক সরকার চাইলোই না, এখন তারাই এটা নিয়ে লাফাচ্ছে।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার দল তত্ত্বাবধায়ক সরকার চায়, নির্বাচন করতে চায়, গণতন্ত্র উদ্ধার করতে চায়? দেশবাসীকে বলব, বিএনপি কোন গণতন্ত্র উদ্ধার করতে চায়? গণতন্ত্রের নামে দেশটাকে কী দিয়েছিল?

শেখ হাসিনা বলেন, আওয়ামী লীগকে সরানোই নাকি বিএনপির এক দফা আন্দোলন। দেশবাসীর কাছে আমার প্রশ্ন: কী অপরাধ আওয়ামী লীগের?

আওয়ামী লীগ সভাপতি আরও বলেন, প্রতিটি খাতকে কেন তারা পিছিয়ে নিয়েছিল, এর জবাব কি বিএনপি দেবে? খুনিদের কেনো তারা পুরস্কৃত করেছিল, এর জবাব কি বিএনপি দিতে পারবে? জবাব দিতে পারবে বিএনপি, কেনো তারা গ্যাংরেইপ করেছিল?

তিনি বলেন,

তারা ক্ষমতায় থেকে শুধু লুটপাট করেছে, দেশের মানুষকে কিছু দেয়নি। লুটপাট ছাড়া তারা এত টাকা কোথায় পেল। এসবের জবাব মানুষের কাছে তাদের দিতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় এলে দেশকে আবারও অন্ধকারে এবং পেছনে টেনে নিয়ে যাবে। দেশবাসীকে বলব, বিএনপিকে বিশ্বাস করবেন না।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *