close(x)
 

জাতীয়করণ নিয়ে ওয়ার্কশপে ষড়যন্ত্র দেখছেন আন্দোলনরত শিক্ষকরা

‘হঠাৎ টেলিফোন করে শিক্ষা অধিদপ্তরের কলেজ শাখার পরিচালক ও বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতির সভাপতি শাহেদুল খবির চৌধুরী আমাকে বললেন, ২৭ ও ২৮ জুলাই (শুক্র ও শনিবার) জাতীয়করণ নিয়ে ওয়ার্কশপ হবে। আন্দোলন স্থগিত করে সে ওয়ার্কশপে যোগ দিতে বললেন তিনি। আমি সঙ্গে সঙ্গে তা প্রত্যাখ্যান করলাম।’

বুধবার বিকেলে জাতীয়করণ নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি ঘোষিত ওয়ার্কশপে যোগ দেয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে এ কথা বলেন আন্দোলনরত শিক্ষকদের নেতা ও বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির (বিটিএ) সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ শেখ কাওছার আহমেদ।

জানা গেছে, আগামীকাল বৃহস্পতিবার ও পরশু শুক্রবার শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয়করণ নিয়ে আলোচনা করতে শিক্ষক নেতাদের নিয়ে ওয়ার্কশপের আয়োজন করা হয়েছে বলে বলা হচ্ছে। বুধবার বিষয়টি নিশ্চিত করে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি আন্দোলনরত শিক্ষক নেতাদের সে ওয়ার্কশপে অংশ নেয়ার আহ্বান জানান। তবে, মন্ত্রীর সে আহ্বান প্রত্যাখ্যান করেন আন্দোলনরত শিক্ষকরা।

অধ্যক্ষ শেখ কাওছার আহমেদ আরো বলেন, মন্ত্রী যখন আমাদের আলোচনায় ডেকেছিলেন তখন আমরা এক বুক আশা নিয়ে গিয়েছিলাম। সেখানে দালাল নিযুক্ত করে আমাদের অপদস্ত করা হয়েছে। মন্ত্রী আমাদের কোনো কথাই শোনেননি। এ ওয়ার্কশপ জাতীয়করণের আন্দোলন দমানোর ষড়যন্ত্র। আমরা এ ওয়ার্কশপের ঘোষণা প্রত্যাখ্যান করছি। জাতীয়করণের সুস্পষ্ট ঘোষণা বা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ না পাওয়া পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলবে।

এর আগে বুধবার দুপুরে রাজধানীর ইডেন মহিলা কলেজে এক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আমরা আগামীকাল ও পরশু জাতীয়করণের বিষয়ে দুটি কর্মশালা করছি। যেখানে সব শিক্ষক সংগঠনের নেতারা আসবেন। আমি আশা করবো, আন্দোলনরত শিক্ষক নেতারা সে কর্মশালায় আসবেন। সেখানে জাতীয়করণের প্রক্রিয়া কি হবে তা নিয়ে ‘ব্রেইনস্ট্রোম’ করা হবে।

এসময় তিনি আন্দোলনরত শিক্ষকদের আজ বুধবারের মধ্যে রাজপথ ছেড়ে ক্লাস রুমে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানান। আগামীকাল বৃহস্পতিবার (২৭ জুলাই) বড় দুই রাজনৈতিক দল রাজপথে কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। একই দিনে সমাবেশ ডেকেছে বিএনপি ও আওয়ামী লীগ। এ পরিস্থিতিতে রাজধানীতে আরাজক পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে বলে শঙ্কা প্রকাশ করে শিক্ষামন্ত্রী শিক্ষকদের ক্লাসে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানান।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *