close(x)
 

নারী ভক্তের দেওয়া ওষুধে আঙুলের ক্ষত সারল মঈনের

এজবাস্টন টেস্টে টানা বোলিং করায় তার ডান হাতের তর্জনীর মাথায় ফোসকা পড়েছিল।

অবসর ভেঙে অ্যাশেজ খেলতে নেমেছেন ইংল্যান্ডের বর্ষীয়ান অলরাউন্ডার মঈন আলী। এজবাস্টন টেস্টে টানা বোলিং করায় তার ডান হাতের তর্জনীর মাথায় ফোসকা পড়েছিল। যে কারণে টেস্টের শেষ দিনে মাত্র ৭ ওভার বোলিং করতে পেরেছিলেন। মঈনের এই সমস্যার সমাধান করে করে দিলেন তারই এক নারী ভক্ত।

যিনি ইংল্যান্ডের জাতীয় স্বাস্থ্য সার্ভিসের (এনএইচএস) একজন কর্মী।
মঈন ফিঙ্গার স্পিনার হওয়ায় বল গ্রিপ করেন তর্জনী দিয়ে। দীর্ঘদিন পর টেস্ট ক্রিকেটে ফিরে টানা বোলিং করায় তার আঙুলে ফোসকা পড়ে যায়। ঘটনাটি খেয়াল করেন মঈনের সেই নারী ভক্ত।

অ্যাশেজে এজবাস্টন টেস্টে ইংল্যান্ডের হারের পর সেই নারী ভক্ত মঈন আলীকে একটি মেইল পাঠান। সেই মেইলে তিনি নিজেকে মঈনের ‘বড় ভক্ত’ হিসেবে দাবি করেন এবং আঙুলের সমস্যার সমাধান দেন। সেই ওষুধ ব্যবহার করে মঈন এখন পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠেছেন!‍ বিষয়টি নিয়ে তিনি খুব উচ্ছ্বসিত।
ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমকে মঈন বলেছেন, “তিনি (নারী ভক্ত) দাবি করেন, আমার আঙুলের কাটা ও ক্ষতস্থান তার চোখে পড়েছে।

এরপর তিনি আমাকে মেডিহানি (মধু থেকে তৈরি ওষুধ) পাঠান। এটি মানুকা ফুলের মধু থেকে তৈরি অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল জেল, যা ক্ষত নিরাময় করে। তিনি মেইলে লিখেছেন, ‘আমরা তোমাকে একটি জিনিস পাঠিয়েছি, যেটি তোমাকে সাহায্য করবে।’ তার পাঠানো ওষুধটি বিস্ময়করভাবে কাজ করেছে। ক্ষতটা খুব দ্রুত শুকাতে শুরু করে।

এখন আমি যতটা সম্ভব বোলিং করতে চাই।”
আগামী বুধবার থেকে ম্যাঞ্চেস্টারে শুরু হবে অ্যাশেজ সিরিজের চতুর্থ টেস্ট। অ্যাশেজ শেষে সেই নারী ভক্তের সঙ্গে যোগাযোগ করার কথাও ঘোষণা করেছেন মঈন, ‘তিনি শুধু জানিয়েছেন, এনএইচএসে চাকরি করেন এবং নিজেও এই ওষুধ ব্যবহার করেছেন। সিরিজ শেষে আমি তাকে মেইল করব। অসাধারণ লেগেছে তার কাজটি। আমি একজন ক্রিকেটার এবং আমার প্রতি কেউ এমন সহানুভূতিশীল আচরণ করলেন, যিনি আমাকে কখনো দেখেনওনি। এসব কারণেই ইংল্যান্ড একটি অসাধারণ জায়গা।’

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *